আল আকসা মসজিদের ইতিকথা | মসজিদে আকসার প্রাচীন ইতিহাস | ইবরাহীম, ইসহাক ও ইয়াকুব (আঃ)-এর যুগে মসজিদে আকসা (আল-আকসা-৪)

আল আকসা মসজিদের ইতিকথা শীর্ষক এই প্রবন্ধগুলো এ এন এম সিরাজুল ইসলামের লেখা “আল আকসা মসজিদের ইতিকথা” গ্রন্থ থেকে নেওয়া হয়েছে। সুন্দর তথ্যবহুল এই গ্রন্থটি বাংলাদেশ ইসলামিক সেন্টার, ঢাকা কর্তৃক প্রকাশিত।

মসজিদে আকসার প্রাচীন ইতিহাস


বুখারী ও মুসলিম শরীফে হযরত আবু যার গিফারী (রাঃ) থেকে বর্ণিত । তিনি বলেন, আমি রাসূলুল্লাহ (সাঃ)-কে প্রশ্ন করি, যমীনে প্রথম কোন্ মসজিদ তৈরি হয়েছিল? তিন উত্তরে বলেন, 'মসজিদে হারাম'। আমি জিজ্ঞেস করি, তারপর কোনটি? তিনি বলেন, 'মসজিদে আকসা'। আমি পুনরায় জিজ্ঞেস করি, এ দুটোর মধ্যে সময়ের ব্যবধান কত? তিনি বলেন, ‘৪০ বছর’।

যারা বলেন, হযরত সুলাইমান (আঃ) মসজিদে আকসা তৈরী করেছেন, তাদের এই বক্তব্যের উপর প্রশ্ন জাগে, ইবরাহীম (আঃ)-এর সাথে সুলাইমান (আঃ)-এর সময়ের ব্যবধান হচ্ছে এক হাজার বছর। অথচ উপরোক্ত হাদীসে বলা হয়েছে, কা'বার ৪০ বছর পর মসজিদে আকসা তৈরি হয়েছে।

ইবনুল যাওজী এই প্রশ্নের জওয়াবে বলেন, হাদীসে মসজিদে আকসার প্রথম ভিত্তির প্রতি ইঙ্গিত দেয়া হয়েছে। ইবরাহীম (আঃ) যেমনি কা'বার প্রতিষ্ঠাতা নন, তেমনি সুলাইমান (আঃ)ও মসজিদে আকসার প্রতিষ্ঠাতা নন। বরং তাঁরা ২ জন হচ্ছেন পুনঃনির্মাণকারী। কাবার মূল প্রতিষ্ঠাতা হচ্ছেন, হযরত আদম (আঃ)। পরবর্তীতে, বিভিন্ন জায়গায় তাঁর সন্তানেরা ছড়িয়ে পড়ে। তাদের কেউ ৪০ বছর পর মসজিদে আকসা প্রতিষ্ঠা করেন। ২০

আরেক বর্ণনায় বলা হয়েছে, যমীনের উপর প্রথম মসজিদ হচ্ছে মসজিদে হারাম যা ইবরাহীম (আঃ) তৈরি করেছেন। আর মসজিদে আকসা হচ্ছে ২য় মসজিদ, যা কা'বা শরীফ প্রতিষ্ঠার ৪০ বছর পর হযরত ইয়াকুব (আঃ) তৈরি করেন। তারপর দাউদ (আঃ) তার সংস্কার করেন এবং সুলাইমান (আঃ) এর পূর্ণতা সাধন করেন ।২১

অন্য আরেক বর্ণনায় এসেছে, হযরত ইবরাহীম (আঃ) কা'বা নির্মাণের ৪০ বছর পর মসজিদে আকসা নির্মাণ করেন । ২২

এবার আমরা মসজিদে আকসার নির্মাণ ও সংস্কার সম্পর্কে ধারাবাহিক আলোচনা শুরু করবো।

হযরত ইবরাহীম (আঃ)-এর যুগে মসজিদে আকসা

হযরত ইবরাহীম (আঃ) মসজিদে আকসা নির্মাণ করেছেন বলে ইতিপূর্বে আমরা এক বর্ণনায় জানতে পেরেছি। তিনি নিজ জন্মভূমি ইরাকে ইসলাম প্রচারের অভিযোগে নির্যাতিত ও নিষ্পেষিত হন এবং পরে ইরাক থেকে সিরিয়ায় হিজরাত করেন। তিনি তাঁর আশ্রয়কেন্দ্র সিরিয়ায় দীর্ঘদিন বসবাস করেন। তিনি ইরাক থেকে নিজের মা-বাপ ও আত্মীয়-স্বজন সবাইকে ত্যাগ করেন আল্লাহর দীনের স্বার্থে হিজরাত করে। তারপর সিরিয়ায় যখন চরম দুর্ভিক্ষ দেখা দেয়, তখন তিনি মিসরে চলে যান। মিসরের ফেরাউন তাঁর স্ত্রী সারার প্রতি আকৃষ্ট হওয়ার ঘটনার পর তিনি পুনরায় সিরিয়ায় ফিরে আসেন। মিসরের ফেরাউন সম্ভ্রান্ত কারাবন্দী হাজারকে সারার প্রতি উপহার দেয়। হাজারও ঐ সফরে হযরত ইবরাহীমের (আঃ) সফর-সঙ্গিনী ছিলেন। সারা হাজারকে ইবরাহীমের (আঃ) উদ্দেশ্যে উপহার দেন। হাজারের ঘরে হযরত ইসমাঈল (আঃ) জন্মগ্রহণ করেন।

আল খলীল শহরে মসজিদে ইবরাহীম এর ভেতর এক গুহায় হযরত ইবরাহীম, ইসহাক ও ইয়াকুব (আঃ) এবং তাঁদের স্ত্রীদের কবর রয়েছে।

আল খলীল শহরে মসজিদে ইবরাহীম। এর ভেতরে এক গুহায় হযরত ইবরাহীম, ইসহাক ও ইয়াকুব (আঃ) এবং তাঁদের স্ত্রীদের কবর রয়েছে।

হযরত ইবরাহীম (আঃ) হাজার ও শিশুপুত্র ইসমাঈলকে মক্কার নির্জন মরুভূমিতে রেখে যান। মক্কায় কোন কৃষি আবাদী ছিল না। তিনি সেখানে ইসমাঈলকে (আঃ) সাথে নিয়ে কা'বা শরীফ তৈরী করেন। তারপর তিনি পুনরায় সিরিয়া ফিরে আসেন। তখন জেরুজালেম সিরিয়ার অধীন ছিল । কা'বা শরীফ তৈরির ৪০ বছর পর তিনি মসজিদে আকসা তৈরি করেন ।

হযরত ইসহাক ও ইয়াকুব (আঃ)-এর যুগে মসজিদে আকসা

হযরত ইসমাঈল (আঃ)-এর জন্মের দশ বছরেরও বেশী সময় পরে হযরত ইবরাহীম (আঃ)-এর পরবর্তী সন্তান ইসহাকের জন্ম হয়। ইসমাঈলের মত ইসহাকও নবী ছিলেন। হযরত ইসহাকের ঘরে দুই ছেলে জন্মগ্রহণ করেন। তাঁরা হলেন ইয়াকুব ও ইসু। হযরত ইয়াকুব (আঃ) নবী ছিলেন। তবে ইসু নবী ছিলেন না। ইয়াকুবের উপাধি ছিল ইসরাইল। তাঁর দিকে সম্বোধন করে তাঁর বংশধরকে বনু ইসরাইল বলা হয়। পরবর্তীতে ইসুর পরিবর্তে ইয়াকুবের বংশের মধ্যে নবুওয়াত বিদ্যমান থাকে।

হযরত ইবরাহীম (আঃ) সাখরার স্থানে যে মসজিদে আকসা নির্মাণ করেন, তা দুর্বল হয়ে পড়ায় হযরত ইয়াকুব (আঃ) তা সংস্কার করেন। ২৩

২০. অফা-আল-অফা, নূরুদ্দিন সমাহুদী ।
২১. আত্-তাতাউর আল-উমরানী লি-মাদীনাতিল কুদস ডঃ আলীম খোদার। 
২২. কাবলা আনইউ হাদ্দাসা আল-আকসা, আবদুল আযীয মোস্তফা ।
২৩. আল-বিদায়াহ ওয়ান্-নিহায়াহ, হাফেজ ইবনে কাসীর, ১ম খণ্ড, ১৮৪ পূঃ

💖💝Thanks for being with Mohammadia Foundation. Pls Stay with us always💝💖

এই পোস্টটি পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন

পূর্বের পোস্ট দেখুন পরবর্তী পোস্ট দেখুন
এই পোস্টে এখনো কেউ মন্তব্য করে নি
মন্তব্য করতে এখানে ক্লিক করুন

মোহাম্মদীয়া ফাউন্ডেশনের নীতিমালা মেনে কমেন্ট করুন। প্রতিটি কমেন্ট রিভিউ করা হয়।

comment url